বঙ্গোপসাগরে অস্ত্রসহ ৩০ জলদস্যু গ্রেপ্তার


লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাহবুব আলম বলেন, ডাকাত সর্দার ইউসুফ মাঝি ও করিম মাঝির নিজস্ব বোট ও কোম্পানি রয়েছে, যা দিয়ে তাঁরা মাঝির ছদ্মবেশে সমুদ্রে দস্যুতা কার্যক্রম পরিচালনা করতেন। আসামি ইউসুফ মাঝি ছিলেন ডাকাতির মূল পরিকল্পনাকারী। তাঁর দলের কাজ ছিল ডাকাতির জন্য অন্যান্যদের একত্র করা। এ ছাড়া শাহেদ মাঝির দলের কাজ ছিল ডাকাতি করার জন্য অস্ত্র, বোট, জাল ও আনুষঙ্গিক সরঞ্জাম সরবরাহ করা। করিম মাঝির দলের কাজ ছিল লুট করা মালামাল সুবিধামতো স্থানে বিক্রয় করে টাকা সদস্যদের ভাগ করে দেওয়া।

র‍্যাব জানায়, গ্রেপ্তার আসামিরা বাঁশখালী, কুতুবদিয়া, চকরিয়া, পেকুয়া ও মহেশখালী এলাকায় সংঘবদ্ধ জলদস্যুতার ঘটনায় জড়িত ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। তাঁদের নামে বিভিন্ন থানায় অসংখ্য মামলা রয়েছে। পরবর্তী সময়ে ব্যবস্থার জন্য তাঁদের সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *